Skip to content

চাঁদের মত সৌন্দর্য পেতে ঘরে তৈরি কিছু ভেষজ ফেসপ্যাক

ভেষজ ফেসপ্যাক

চাঁদের মত সুন্দর ত্বক পেতে কে না চায়? কিন্তু আসলেই কি অতটা সুন্দর থাকা সম্ভব। একটু যত্ন নিলে আপনিও কিন্তু আপনার ত্বককে খুব পরিচ্ছন্ন আর স্বাস্থ্যবান রাখতে পারেন। এজন্য প্রতিদিন নিয়ম করে মুখে ভেষজ ফেসপ্যাক (Herbal Face Pack) লাগাতে পারেন। বাজারে এখন অনেক ধরনের ভেষজ ফেসপ্যাক পাওয়া যায়। সেগুলো লাগানোর সঠিক নিয়ম হচ্ছে, মুখে লাগানোর আগে অনেকক্ষণ সময় নিয়ে ভিজিয়ে রাখবেন। এছাড়াও তাজা উপকরণ দিয়ে বাড়িতে বসেও ফেসপ্যাক তৈরি করে নিতে পারেন। চলুন এবার কথা না বাড়িয়ে বেশ কিছু ভেষজ ফেসপ্যাক সম্পর্কে জেনে নেই।

বেশ কিছু অসাধারন ভেষজ ফেসপ্যাক

নিচে আমরা বেশ কিছু ভেষজ ফেস প্যাকের রেসিপি শেয়ার করছি। এই রেসিপিগুলো বানাতে আপনার নিচের ভেষজ উপাদানগুলো লাগবে। এগুলো আপনি যেকোনো বানিয়ার দোকান (Herbal Shop) থেকে অথবা আমাজন (Amazon) থেকে সংগ্রহ করতে পারেন। এগুলো হচ্ছেঃ

ডাবের পানি ও দুধের সর (Coconut Water & Skim Milk)

দুধের সর বা গুড়া দুধের সাথে ডাবের পানি মিশিয়ে বেশ ভালো প্যাক তৈরি করা যায়। এই ধরনের প্যাক মুখে কিছুক্ষন লাগিয়ে রেখে, শুকিয়ে গেলে ঘষে ঘষে উঠিয়ে নিন। এতে মুখের ত্বকের ভাঁজ বা বলিরেখা দূর হয়ে যাবে। মুখের কালো ছোপ ছোপ দাগ থাকলে তা হালকা হয়ে যাবে। আর ত্বক খুব নরম ও নমনীয় হয়ে উঠবে। ফেসপ্যাকটি তৈরি করার জন্য সমপরিমাণ ডাবের পানির সাথে সমপরিমাণ গুঁড়া দুধ মেশান। এবার এটা সমস্ত মুখে লাগিয়ে রাখুন এবং শুকিয়ে না যাওয়া পর্যন্ত রেখে দিন। ত্বক বেশী রুক্ষ হলে এর সঙ্গে অল্প পরিমাণ নারকেল তেল বা মধু মেশাতে পারেন।

গাজরের রস ও চন্দন গুড়া (Carrot Juice & Sandalwood Powder)

মুখে অনেক সময় ছোপ ছোপ কালো দাগ পড়ে যায়। এমন দাগ পরে গেলে গাজর কুচি করে চিপে রস বের করে নিন। এর সঙ্গে চন্দনের গুড়া মিশিয়ে বেশ কিছুক্ষন ভিজিয়ে রাখুন। পরিষ্কার পাটাতে মিহি করে বেটে নিন। মুখ ভালো করে পরিষ্কার করে এবার এই মিশ্রণটি ব্রাশের সাহায্যে মুখে লাগান। ২০ মিনিট রাখার পর ধুয়ে ফেলুন। এতে আপনার মুখের ছোপ ছোপ কালো দাগ খুব দ্রুত দূর হয়ে যাবে। মুখে ব্রণ থাকলে এর সঙ্গে অল্প পরিমাণে নিম পাতার গুঁড়া মেশাতে পারেন।

মধু ও লেবুর রস (Honey and Lemon Juice)

মুখের ত্বকে তাৎক্ষণিক গ্লো বা উজ্জ্বলতা আনতে চান। তাহলে প্রতিদিন মুখে মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে লাগান। ২০ মিনিট রাখার পর মুখ ধুয়ে ফেলুন। এর ফলে খুব দ্রুত মুখ পরিষ্কার হবে এবং ত্বকের তৈলাক্তভাবও কমে যাবে। মধু ও লেবুর রসের অনুপাত হবে ১ঃ১। তবে পাতলা ফেসমাস্ক ব্যবহার করতে না চাইলে এর সঙ্গে বেজ হিসেবে চন্দন গুঁড়া বা মুলতানি মাটি বা ক্লে পাউডার মেশাতে পারেন। 

টমেটোর রস ও লেবু (Tomato Juice and Lemon)

বয়স বাড়লে অথবা অতিরিক্ত ক্যামিকেল জাতীয় কসমেটিকসের প্রভাবে অনেক সময় মুখের লোমকূপের ছিদ্র বড় হয়ে যায়। বড় লোমকূপ ছোট করতে সমপরিমাণ টমেটো ও লেবুর রস একত্রে মিশিয়ে মুখে লাগান। আধ ঘন্টা পরে মুখ ধুয়ে নিন। এই প্যাকটি আপনার মুখের বড় লোমকূপের ছিদ্রকে ছোট ও সঙ্কুচিত করবে। দুধের সরের সাথে মিশিয়ে লাগালে মুখের রুক্ষ্মভাব দূর হয়ে যাবে। আর টমেটো ও লেবু ও শসার রস একত্রে বরফ করে মুখে ঘষে নিলে ত্বক উজ্জ্বল ও পরিষ্কার হয়ে যাবে। 

কাঁচা দুধ ও চন্দন গুড়া (Raw Milk and Sandalwood Powder)

রোদে ঘুরে মুখ এবং হাত পা কালো হয়ে গেছে। তাহলে এবার ঝটপট একটি প্যাক তৈরি করে লাগিয়ে নিন। এই প্যাক তৈরি করতে কাঁচা দুধের সাথে বেসন, চন্দন, শসার রস ও লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এবার রোদে পুড়ে যাওয়া অংশগুলোতে লাগান। কিছুক্ষন রেখে ধুয়ে ফেলুন। এতে ত্বকের কালোভাব দূর হয়ে যাবে।

উপসংহারঃ

ভেষজ যেকোনো ফেসপ্যাকের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বলতে গেলে নেই-ই। সেই সাথে এগুলো বেশ সস্তা ও প্রতিদিনের নিত্য ব্যবহার্য পণ্যের মতোই সহজলভ্য। তাই ভেষজ ফেসপ্যাক ব্যবহার করলে আপনি সাধারণ ক্যামিক্যাল যুক্ত রূপচর্চার উপাদানের চেয়েও ভালো ফল পাবেন। তো আর দেরী না করে আজই শুরু করে দিন ভেষজ উপাদান দিয়ে রূপচর্চা। এই প্যাকগুলো আপনাকে শুধু সুন্দরই রাখবে না সেই সাথে মানসিক শান্তিও দিবে। 

1 thought on “চাঁদের মত সৌন্দর্য পেতে ঘরে তৈরি কিছু ভেষজ ফেসপ্যাক”

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: