Skip to content

ত্বকের কালো দাগ দূর করতে বাদাম ও চন্দনের ব্যবহার (Nut and Sandalwood)

বিভিন্ন ধরণের বাদাম যা রোগ প্রতিরোধে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখে।

প্রাকৃতিক নানা উপাদান ত্বকের সুরক্ষাতে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে৷ এই ভেষজ উপাদানের ব্যবহারে ত্বকের ঔজ্জল্য বাড়ে৷ এর সঙ্গে সৌন্দর্যেও এক নতুন মাত্রা যোগায়৷ চলুন, ত্বকের কালো দাগ দূর (Remove Black Spot) করতে সেই ভেষজ উপাদানগুলোর কথা জেনে নিই৷

চামচে রাখা কিছু চন্দন কাঠের কুঁচি
চামচে রাখা কিছু চন্দন কাঠের কুঁচি

বাদাম এবং কমলা লেবু (Nut and Lemon):

মেয়েদের একটা সমস্যা হল ব্রণের দাগ দূর করা। যদি মুখে ব্রণের কারণে দাগ হয়, তাহলে দুটো বাদাম পিষে তার মধ্যে দুধ ও এক চামচ শুকনো কমলা লেবুর গুড়ো মিশিয়ে আস্তে আস্তে মুখে ঐ পেস্টটা লাগান। বেশ কিছুক্ষন রাখার পর ঐ প্যাকটা যখন মুখে শুকিয়ে যাবে তখন পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। খুব অল্প দিনের মধ্যেই আপনার মুখের সব দাগ দূর হযে যাবে।

আরও পড়ুনঃ

কাঁচা দুধ ও চন্দন পাউডার (Raw Milk and Sandalwood):

রোদের কারণে অনেক সময় ত্বক পুড়ে যায়। চামড়ার মধ্যে কালো ছাপ তৈরি হয়। সেক্ষেত্রে ত্বকের ঔজ্জল্য ফিরিয়ে আনতে ডাবের পানির মধ্যে কাঁচা দুধ, অল্প পরিমাণে চন্দন পাউডার, শশার রস, লেবুর রস, বেসন মিশিয়ে একটা প্যাক তৈরি করুন। সপ্তাহে দু দিন ঐ প্যাকটা সারা শরীরে লাগিয়ে বেশ কিছুক্ষন রাখার পরে ধুয়ে ফেলুন। এতে কালো ভাবটা দূর হয়ে যাবে৷

চন্দন, কাঁচা হলুদ ও অ্যালোভেরার মাস্ক (Sandalwood, Turmeric, and Aloe Mask):

চন্দনের (Sandalwood) সঙ্গে কাঁচা হলুদ (Turmeric) আর ঘৃতকুমারীর রস (Aloe Juice) মিশিয়ে তৈরি করুন একটি মাস্ক। এটা আপনি সপ্তাহে দুই থেকে তিনদিন লাগাতে পারেন, যা মুখের মরা কোষ দূর করে ত্বক উজ্জ্বল করবে। ঘৃতকুমারী বা অ্যালোভেরাতে থাকা এন্টি অক্সিডেন্ট (Antioxidant) খুব কার্যকরভাবে ত্বক পরিষ্কার করে (Skin Cleansing)ও ত্বকের উজ্জলতা (Skin Brightening) বাড়ায়।

উপসংহারঃ

ত্বকের নিয়মিত যত্ন ও পরিচর্যায় এই মাস্কগুলো ব্যবহার করলে অল্প দিনেই অসাধারণ সুফল পাবেন। আজকাল এ ধরনের সব ধরনের গুঁড়া মাস্ক ও ফেসপ্যাক বাজারে কিনতে পাওয়া যায়। তাই আপনার পছন্দমত ফেসপ্যাক বা মাস্ক কিনেও ব্যবহার করতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: