Skip to content

চুল পড়া কমাতে সেরা ৫ ভিটামিন

আপনার চুল যদি হঠাৎ করেই পড়ে যেতে শুরু করে তবে সবার আগে নজর দিন খাদ্য তালিকায়। প্রতিদিনের খাদ্যতালিকা কি সত্যিই আপনার চুলের জন্য প্রয়োজনীয় ভিটামিনের জোগান দিচ্ছে। ভিটামিন ও মিনারেল শুধুমাত্র আপনার টিস্যু, পেশী, হাড় এবং যকৃতের জন্যই নয় এগুলো আপনার নখ এবং চুলের জন্যও উপকারী। নিয়মিত ভিটামিন সমৃদ্ধ খাবার খেলে আপনি পেতে পারেন উজ্জ্বল ও শক্তিশালী চুল এবং নখ।

hairstyles-for-long-hair-19-2314661

ভিটামিন বি ১২

ভিটামিন বি ১২ কে কোবালামিনও বলা হয়। ভিটামিন বি১২ হচ্ছে পানিতে দ্রবণীয় অত্যাবশ্যক ভিটামিন যা ডিএনএ সংশ্লেষণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। ফ্যাটি অ্যাসিড এবং অ্যামিনো অ্যাসিড মেটাবলিজমকে প্রভাবিত করার মাধ্যমে এটি স্নায়বিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এই অপরিহার্য ভিটামিনের অভাব ক্লান্তি এবং দুর্বল স্মৃতিশক্তির কারণ। এর ফলে চুল পড়ে যায় এবং নখ ভেঙ্গে যায়।

ভিটামিন বি ১২ এর গুরুত্বপূর্ণ উৎস হচ্ছে চিংড়ি, মাংস (যকৃত), হাঁস-মুরগী, ডিম, দুধ এবং অন্যান্য দুগ্ধজাত দ্রব্য। ভেগান এবং নিরামিষাশীদের মধ্যে চুল পড়ে যাওয়া, এই ভিটামিনের ঘাটতির কারণে প্রায়ই দেখা যায়।

অনেক চুলের প্রসাধনীতেও চুলের ঘনত্ব, উজ্জ্বলতা ও বৃদ্ধি বাড়াতে ভিটামিন বি ১২ ব্যবহার করে যায়। নিয়মিত যত্নের জন্য ভিটামিন বি১২ সমৃদ্ধ এমন একটি পণ্য বেছে নিতে পারেন। তবে এক্ষেত্রে খ্যাতনামা ব্র্যান্ডের পন্যই সবচেয়ে ভালো।

ভিটামিন ডি

ভিটামিন “ডি” কে সূর্যের আলোর ভিটামিন বলা হয়। ভিটামিন ডি৩ হাড়, লিগামেন্ট, ত্বক ও নখের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। এটা চুলের দ্রুত বৃদ্ধির জন্যও গুরুত্বপূর্ণ। ভিটামিন ডি৩ মানুষের শরীরের ভিটামিন ডি২ থেকে সংশ্লেষিত হয়, যা সরাসরি শোষিত হতে হবে।

সকালের সূর্যালোক ভিটামিন ডি২ এর একমাত্র উৎস। এজন্য দৈনন্দিন এক ঘণ্টা অবশ্যই সূর্যের আলোতে কাটানো উচিৎ। ভিটামিন ডি৩ এর সরাসরি সংশ্লেষণ ছাড়াও অন্যান্য উৎসগুলি হল মাছ, শস্য, মাশরুম, ডিম এবং দুগ্ধ।

বলা হয়ে থাকে, ভিটামিন ডি চুলের বৃদ্ধি এবং ঘনত্ব বাড়ানোর জন্য খুব ভালো একটি ভিটামিন। ভিটামিন ডি চর্বিতে – দ্রবণীয় ভিটামিন এবং এর আধিক্যে হাইপারভিটামিনোসিস দেখা দেয়, ফলে বিষক্রিয়া ঘটতে পারে। তাই, ভিটামিন ডি সম্পূরক গ্রহণ করার আগে ডায়গনস্টিক পরীক্ষার ব্যবস্থা করা উত্তম। একজন সাধারণ ফিজিশিয়ান ডায়াগনস্টিক পরীক্ষার মাধ্যমে ঘাটতি অনুযায়ী সঠিক সাপ্লিমেন্টের সুপারিশ করতে পারেন।

ভিটামিন সি

এটা সবাই জানে যে, ভিটামিন সি ইমিউন সিস্টেম গঠনে অপরিহার্য কিন্তু যেটা জানে না তা হচ্ছে এটা সুস্থ, চকচকে এবং নরম চুলের জন্য পুষ্টির একটি অন্যতম উৎস।

ভিটামিন সি এর সরাসরি উৎস হলো সব ধরনের টক ফল, শসা, ব্রোকোলি, মুলা, ক্যান্টালোপ এবং ব্যারি জাতীয় ফল। লেবুর রসের সরাসরি ব্যবহার এক্ষেত্রে অত্যন্ত সহায়ক।

ভিটামিন সি এর যৌগগুলি স্কাল্প পরিষ্কার করে এবং খুশকির সাথে লড়াই করে এবং আপনার চুলের গোঁড়াকে মজবুত ও পরিচ্ছন্ন রাখতে সহায়তা করে। আপনি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ চুলের পণ্য খুঁজে বের করে এগুলো নিয়মিত ব্যবহার করতে পারেন। সরাসরি গ্রহন করা সবচেয়ে ভালো। তাজা ফল, শাকসবজি, দুগ্ধ, পাতলা মাংস, সালাদ সবজি এবং রাইয়ের রুটি ভাজা খেলে শুধুমাত্র খাদ্যে ভিটামিন সি এর মাত্রাই বাড়বে না, সেই সাথে চুলের বৃদ্ধি এবং ঘনত্বের জন্য প্রয়োজনীয় অন্যান্য সব ভিটামিনের চাহিদাও পূরণ হবে।

ভিটামিন বি ৭ বা বায়োটিন

ভিটামিন বি ৭, যা বায়োটিন নামেও পরিচিত, চুলের বৃদ্ধি এবং ঘনত্বের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং ভাল একটি ভিটামিন। চুল বৃদ্ধির পাশাপাশি এটি ফ্যাটি অ্যাসিড এবং অ্যামিনো অ্যাসিড উৎপাদনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে যা আপনার পেশী, টিস্যু এবং লিগামেন্টগুলোকে সুস্থ রাখবে।

বিভিন্ন প্রকার প্রাণীজ ও উদ্ভিজ খাদ্য যেমন ডিম, মাংস, বার্লি, ইস্ট (বিয়ার বানানোর জন্য ব্যবহৃত হয় যেই ব্রিউয়ার ইস্ট), সিরিয়াল, দুধ এবং বাদামি গম ভিটামিন বি৭ সমৃদ্ধ। চুলের বৃদ্ধি ও ঘনত্বের জন্য এগুলোতে অন্যান্য ভিটামিনও আছে।

বি ৭ অন্যান্য বি গ্রুপের ভিটামিন যেমন বি ৬ এবং বি ১২ এর সাথে উদ্দীপক হিসেবে কাজ করে। বি গ্রুপের এক বা একাধিক ভিটামিনের অভাবের ফলে অন্যান্য বি গ্রুপের ভিটামিনের অভাব দেখা দেয়। বি৭ এর অভাবে থাইরয়েড গ্রন্থির গোলযোগ এবং হরমোনের ভারসাম্যহীনতা দেখা দিতে পারে। গর্ভনিরোধক পিলও অনেক সময় ভিটামিন বি৭ এর ঘাটতির কারন হয়।

খনিজ পদার্থ যেমন আয়রন, জিংক এবং ম্যাগনেসিয়াম

আয়রন, জিঙ্ক এবং ম্যাগনেসিয়াম হিমোগ্লোবিনের উৎপাদন এবং মস্তিষ্কে শক্তি বৃদ্ধির মতো বেশ কিছু শারীরিক কার্যক্ষমতার জন্য গুরুত্বপূর্ণ, এগুলো মাথার ত্বককে মসৃণ এবং খুশকিমুক্ত রাখতে সহায়তা করে। সবুজ শাক সবজি আয়রনের আকর। তবে, আয়রনের শোষণে সাহায্য করার জন্য আপনার খাবারে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাদ্য অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। জিঙ্ক এবং ম্যাগনেসিয়াম স্বাভাবিকভাবেই  বাদাম, শিম জাতীয় সবজি, মটরশুটি, গ্রীক বা অন্য কোন প্রাকৃতিক দধিতে প্রচুর পরিমানে পাওয়া যায়। এছাড়াও বিভিন্ন ধরণের বীজ যেমন সূর্যমুখী, হেম্প, এবং ফ্লাক্স সিডেও প্রচুর পরিমানে জিংক ও ম্যাগনেসিয়াম আছে। এভোকাডো, কলা, সবুজ ক্যাপসিকাম, ডার্ক চকোলেট এবং শুকনো ফলেও ম্যাগনেসিয়াম আছে।

দ্রুত চুল বৃদ্ধির পাশাপাশি এই ভিটামিন ও খনিজগুলি মাথার ত্বকে রক্ত চলাচল স্বাভাবিক রাখতে, চকচকে এবং মজবুত চুল পেতে এবং শরীরের অন্যান্য অঙ্গপ্রত্যঙ্গ সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।

চিনির পরিবর্তে লবন দিয়ে বানানো এক গ্লাস লেবুর শরবত, সবুজ শাকসবজি, রাইয়ের রুটি অথবা তেল ছাড়া সবজির ভর্তা, অথবা বেক করা কিছু পাতলা মাংস ও মাছ অতিরিক্ত সময় ও টাকা খরচ না করেই হতে পারে এক বেলার সুষম খাবার। চর্বি এবং সোডা সমৃদ্ধ প্রক্রিয়াজাত খাবারের পরিবর্তে এভোকাডো, কলা, টক ফল, স্যালারি স্টিক হতে পারে ভালো নাস্তা। আধুনিক জীবনধারার খাদ্যাভ্যাস আর সুস্থ থাকার খাদ্যাভ্যাসের মধ্যে বেশকিছু পার্থক্য আছে। সুস্থ থাকতে হলে আপনাকে অবশ্যই ঘরে তৈরি, পুষ্টি সমৃদ্ধ খাবার গ্রহণ করতে হবে যা আপনাকে একটি সুস্থ ও সুন্দর জীবন চালাতে সহায়তা করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: