Skip to content

রূপচর্চায় টমেটোঃ কীভাবে বানাবেন টমেটোর মাস্ক ও ফেসপ্যাক

টমেটোতে উচ্চ মাত্রায় লাইকোপেন নামক পদার্থ থাকে যা ত্বকের জন্য দারুন উপকারী। প্রতিদিনের খাদ্যাভ্যাসে তাই টমেটো রাখলে আপনি পেতে পারেন প্রাকৃতিকভাবে উজ্জ্বল ত্বক। টমেটো ত্বকের অক্সিজেন গ্রহণের মাত্রা বাড়িয়ে তোলে, যা বার্ধক্যজনিত সমস্যা দূর করে ও ত্বকের বলিরেখাও কমাতে সাহায্য করে।

এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখে এবং সূর্যের অতিবেগুনী রশ্মির প্রভাবে সৃষ্টি হওয়া মেছতা দূর করতেও সাহায্য করে। এক টুকরা টমেটো নিয়ে মুখে ঘষে ঘষে লাগালেও দারুন উপকার পাবেন। টমেটো একটি সাশ্রয়ী ঊপকরন যা দিয়ে কোন বাড়তি খরচ ছাড়াই ঘরে বসে ত্বকের পরিচর্যা করা সম্ভব। তাই সুন্দর লাবণ্যময় ত্বক পেতে আজ থেকেই টমেটোর ব্যবহার শুরু করতে পারেন।

tomato-4816411

ত্বককে স্বাস্থ্যজ্জল রাখার জন্য টমেটো একটি অনন্য উপাদান। টমেটোর রস বা খোসা দিয়ে অনেক ধরণের মাস্ক, স্ক্রাব ও প্যাক তৈরি করা যায়।

টমেটো একটি টক ফল। এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি, ভিটামিন এ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। ত্বকের যত্নে টমেটো বহুলভাবে ব্যবহার করা হয়। ব্রণ ও ফুসকুড়ি দূর করতেও টমেটো অনেক ভালো কাজ করে। টমেটো আমাদের ত্বকের বড় লোমকূপগুলোকে ছোট ও সংকুচিত করতে সাহায্য করে, যার ফলে ময়লা জমে ব্রণের সৃষ্টি হতে  পারে না। ত্বক পরিস্কারক ও মুখের স্ক্রাব হিসেবে টমেটো ব্যবহার করা হয়। তাই ঘরোয়া রূপচর্চার ক্ষেত্রে এটি একটি অন্যতম উপাদান।

টমেটো দিয়ে কীভাবে রূপচর্চা করবেন

ব্রনের জন্য টমেটোঃ একটি তাজা টমেটো দুই টুকরা করুন। একটি টুকরা নিয়ে গালের উপর বৃত্তাকার গতিতে ঘষে ঘষে লাগান। টমেটোতে আছে ভিটামিন সি ও এ, যা ব্রণ সারাতে সাহায্য করে। টমেটোর রস মুখে লাগালেও একই উপকার পাবেন। টমেটো মুখে লাগানোর দশ মিনিট পর মুখ ধুয়ে নিন। আরও ভালো ফল পেতে সপ্তাহে ৩ দিন এই নিয়মে টমেটো ব্যবহার করুন।

স্ক্রাব হিসেবে টমেটোঃ একটি টমেটো দুই টুকরা করুন। অল্প একটু চিনি নিয়ে তাতে গড়িয়ে ত্বকের উপর আস্তে আস্তে ঘষুন। এটি একটি প্রাকৃতিক স্ক্রাবার হিসেবে কাজ করবে, যা ত্বকের মরা কোষ  দূর করে ত্বককে উজ্জ্বল করে তুলবে।

খোলা লোমকূপ বন্ধ করতে টমেটোঃ একটি বাটীতে ১ টেবিল চামচ টমেটোর রস ও ১ টেবিলচামচ পাতিলেবুর রস মেশান। ছোট্ট একটি তুলার বল নিয়ে এই মিশ্রনে ডুবান। তারপর লোমকূপের উপর আস্তে আস্তে লাগান। কিছুক্ষন পর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

রোদে পোড়া দাগ দূর করতে টমেটোঃ একটি টমেটো ও ২ টেবিল চামচ দই একটি ব্লেন্ডারে নিয়ে ব্লেন্ড করুন। এবার ত্বকের যেসব জায়গায় রোদে পোড়া ভাব আছে, সেসব জায়গায় এই পেস্ট লাগান। কয়েক মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে তা ধুয়ে ফেলুন।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে টমেটোঃ ১ টেবিল চামচ টমেটো ও ১ টেবিল চামচ মধু নিয়ে ভালো করে মেশান। এই মিশ্রণটি মুখে লাগিয়ে দশ মিনিট রেখে দিন এবং তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এই মাস্ক ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে।

তৈলাক্ত ত্বকের পরিচর্যায় টমেটোঃ ১ টেবিলচামচ টমেটোর রসের সঙ্গে ১ টেবিলচামচ শসার রস নিয়ে ভালভাবে মেশান। তৈলাক্ত ত্বকের উপর এই মিশ্রণটি লাগান। দশ মিনিট রেখে মুখ ধুয়ে ফেলুন। টমেটোতে থাকা এন্টি-অক্সিডেন্ট ও লাইকোপেন ত্বকের লোমকূপের উপর জমে থাকা ময়লা দূর করে ত্বককে ভিতর থেকে উজ্জ্বল ও পরিস্কার করে তোলে।

টমেটোর তৈরী বেশ কিছু মাস্ক এবং প্যাক যেগুলো ব্যবহার করলে উপকার পাবেনঃ

শশা ও টমেটোর মাস্কঃ রোদে পোড়া ভাব দূর করতে শশা ও টমেটোর মাস্ক অত্যন্ত উপকারী। টমেটো ও শশার রস একসাথে মিশিয়ে রোদে পোড়া জায়গায় লাগান তুলার সাহায্যে লাগান। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানির ঝাপ্টা দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

পাতিলেবু এবং টমেটো: রোদে পোড়া ত্বক বা ত্বকের মেছতা দূর করার জন্য এই মিশ্রন খুব কাজের। এক চামচ টমেটোর রসের সাথে এক চামচ পাতিলেবুর রস মিশিয়ে রোদে পোড়া জায়গা গুলোতে লাগান। কিছুক্ষন পর শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানির ঝাপ্টা দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

ওটমিল এবং টমেটো: কয়েকটি টমেটোর কোয়া, দই এবং ওটমিল মিশিয়ে বানাতে পারেন একটি অসাধারণ ব্লিচ (bleach)। এই তিনটি উপাদান আপনার ত্বকের মরা ও শুকনো চামড়া তুলে ফেলতে সাহায্য করবে এবং ত্বকের দাগ দূর করবে। ফলে, আপনি পাবেন ফর্সা ও সুন্দর ত্বক।

টমেটো ও অলিভ ওয়েলঃ এক চামচ টমেটোর সঙ্গে এক চামচ অলিভ অয়েল দিয়ে একটি মিশ্রণ তৈরি করুন। এটা মুখে লাগিয়ে ২০ মিনিট অপেক্ষা করুন। তারপর ঠাণ্ডা পানির ঝাপ্টা দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

টমেটো ও চিনির স্ক্রাব: টমেটোর রসের সাথে চিনির স্ক্রাব ত্বকের ব্রণ ও ব্রণের ক্ষত দূর করতে সাহায্য করে। একটি টমেটো অর্ধেক করে কাটুন। এর উপর কিছু চিনি ছড়িয়ে দিন। তারপর তা মুখে বা ত্বকের যেকোনো অংশে বৃত্তাকারে ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে স্ক্রাব করে নিন।

চন্দনকাঠ ও টমেটো: চন্দন কাঠের গুঁড়ার সঙ্গে টমেটোর মিশ্রণ ত্বকের ব্লিচ হিসেবে কাজ করে। একটি বাটিতে কিছু পরিমাণ চন্দন গুঁড়া, টমেটোর রস ও পাতিলেবুর রস একত্রে মেশান। তারপর তা মুখে ব্যবহার করতে পারেন।

পাতিলেবু ও টমেটোঃ এই মাস্ক ত্বকের বলিরেখা দূর করে। এছাড়াও এই প্যাকটি ত্বকের অতিরিক্ত তৈলাক্তভাব দূর করে এবং ব্রনের হাত থেকে ত্বককে রক্ষা করে। টমেটো ও পাতিলেবুর রস ভালো করে মিশান। মুখে লাগানোর পর শুকিয়ে গেলে পানি দিয়ে মুখ পরিস্কার করে নিন।

মাঠা ও টমেটোর রস: রোদে পোড়াভাব দূর করতে মাঠা ও টমেটোর রসের মিশ্রণ খুব উপকারী। এই মিশ্রণটি ত্বককে ঠান্ডা রাখে ও উজ্জ্বল করে তুলতে সাহায্য করে।

টমেটোর রস ও মধু: এই মাস্ক ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে এবং ত্বককে মসৃন ও কোমল করে তোলে।

ফেসপ্যাক ও ফেসমাস্কের জন্য টমেটো একটি আদর্শ উপকরণ। টমেটো দিয়ে আপনি অনায়াসে বানিয়ে নিতে পারেন রূপচর্চার বিভিন্ন উপকরণ। মুখে রোদে পোড়া দাগ পড়লে শুধুমাত্র টমেটো ঘষেই তা দূর করা সম্ভব। টমেটোর সাথে অন্যান্য অরগানিক উপকরণ মিশিয়েও বানাতে পারেন রূপচর্চার বেশ কিছু প্যাক ও মাস্ক।

আসুন জেনে নেই, কীভাবে বানাবেন রূপচর্চার এসব মাস্কঃ

ত্বকের সমস্যা সমাধানে টমেটোর ব্যবহার

মুলতানি মাটি ও টমেটোঃ একটি টমেটো নিয়ে থেঁতো করে নিন। এর সঙ্গে ২ চামচ মুলতানি মাটি যোগ করুন। খুব ভালো করে মিশাতে হবে যাতে কোন প্রকার দানাদার ভাব না থাকে। এবার এই প্যাকটি সারা মুখে লাগিয়ে দশ থেকে পনেরো মিনিট শুকাতে দিন। একেবারে শুকিয়ে গেলে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে তা ধুয়ে নিন। এই প্যাকের ব্যবহার আপনার মুখে প্রাকৃতিক উজ্জ্বলভাব নিয়ে আসবে।

টমেটো ও ভিনিগারঃ ত্বককে উজ্জ্বল ও পরিস্কার করে তোলার আরেকটি উপায় হচ্ছে টমেটো ও ভিনেগার। ১ টি কাচের বাটিতে এক চামচ ভিনেগার নিয়ে তাতে কয়েকটি টমেটোর কোয়া থেঁতো করে মেশান। এই মিশ্রণটি তুলার সাহায্যে ত্বকে লাগান। ভিনেগার ও টমেটোর এসিডিক গুণের ফলে ত্বকের দাগ ও ছোপ ছোপ কাল দাগ দূর হয়ে যায়।

টমেটো ও কলাঃ কলাতে আছে ত্বকের জন্য উপকারী সব ধরণের খনিজ উপাদান। আপনার ত্বকতে আরও বেশি স্থিতিস্থাপক ও সুন্দর করতে টমেটো ও কলা একসাথে মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন। এর সঙ্গে চাইলে মধুও মেশাতে পারেন। এই মাস্ক ব্যবহার করে আপনি দারুন ফল পাবেন।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: