Skip to content

উজ্জ্বল প্রদীপ্ত ত্বকের জন্য ঘৃতকুমারী বা এলোভেরা ফেসপ্যাক

এলোভেরা বা ঘৃতকুমারীর জাদুকরী উপাদান সমূহ এর সুন্দর ও সরস পাতায় লুকানো আছে। এটার সবুজ আবরণের ভিতর আছে এক ধরনের পিচ্ছিল পদার্থ যেটাকে এলোভেরা জেল বা ঘৃতকুমারীর রস বলা হয়। এটার মূল উপাদান হচ্ছে পানি, কিন্তু এছাড়াও এতে আছে খনিজ, ভিটামিন ও অন্যান্য পুষ্টিকর উপাদান। প্রাচীনকাল থেকেই এলোভেরা ঔষধি গাছ হিসেবে প্রসিদ্ধ। ত্বকের যত্নে এলোভেরার বহুল ব্যবহার আছে।

veshoj-520160213141704-9082371

ত্বকের যত্নে এলোভেরার ব্যবহার। এলোভেরা ত্বকের জন্য খুব ভালো ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে। এই জেল ব্যবহারে আপনার ত্বক মসৃণ ও আর্দ্র হবে। তাই দেখতে অনেক তাজা ও উজ্জ্বল মনে হবে।

  • এলোভেরাতে আছে এন্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান যা ব্রণ ও ফুসকুড়ি দূর করতে সাহায্য করে।
  • এলোভেরা এন্টি অক্সিডেণ্টে ভরপুর।
  • এটা আপনার ত্বকের ছোপ ছোপ কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করবে এবং বয়সের ছাপ দূর করতে সাহায্য করবে।
  • ত্বককে টান টান রাখতে চাইলে এবং ত্বকের বলিরেখা দূর করতে চাইলে এলোভেরা ফেসিয়াল করতে পারেন।
  • এলোভেরা ত্বক শীতলকারী।
  • পোকার কামড়ে এটা ব্যবহার করলে আরাম এবং স্বস্তি পাবেন। এমনকি রোদে পোড়া দাগ, পোকার কামড় ও একজিমা ও ঘায়ের চিকিৎসাতেও এলোভেরার জেল ব্যবহার করা যায়।

নীচে এলোভেরার কিছু ব্যবহারবিধি দেয়া হলো, যা আপনি বাড়ীতে বসেই তৈরি করতে পারবেন। এলোভেরার জেল তৈরি করে এর সঙ্গে ভিটামিন ই ক্যাপসুল বা তেল মিশিয়ে ফ্রিজে রাখলে এক মাস পর্যন্ত ভালো থাকবে।

মুখের যত্নে এলোভেরার ফেসপ্যাক ও মাস্ক

রোদে পোড়া দাগ দূর করতে এলোভেরা ফেস প্যাক

যারা বাইরে যান, তাদের ত্বকে রোদের কারণে মেছতা পড়া খুব স্বাভাবিক ব্যপার। অনেক সময় সন্তান জন্মদানের পর কোন কোন মহিলার মুখে মেছতা পড়তে দেখা যায়। তবে যে কারনেই মেছতা পড়ুক না, একবার পড়লে তা দূর করা বেশ কষ্টসাধ্য কাজ। ত্বকের উপরিভাগের মেছতা বা কালো দাগ দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন এলোভেরা জেল আর লেবুর রস।

এলোভেরা আর লেবুর রস মিশিয়ে দুই গালে লাগান। দশ মিনিট অপেক্ষা করুন তারপর ধুয়ে ফেলুন। সাথে এক ফোঁটা হলুদের রসও মেশাতে পারেন। এই প্যাক ব্যবহারে ব্রণ আর ফুসকুড়িও কমে যাবে।

উজ্জ্বল ত্বকের জন্য এলোভেরার ফেসমাস্ক

উপাদানঃ

  • এলোভেরা বা ঘৃতকুমারীর রস
  • হলুদ
  • মধু
  • গুঁড়া দুধ
  • গোলাপজল

কয়েক ফোঁটা হলুদের রস, ১ চামচ মধু, ১ চামচ দুধ আর কয়েক ফোঁটা গোলাপজল একসাথে মিশিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করুন। এর সঙ্গে এলোভেরার জেল মেশান ও উপাদানগুলো ভালভাবে মিশিয়ে নিন। কিছুটা পেস্টের মত হলে এটা মুখে ও গলায় লাগান। ২০ মিনিট রাখুন তারপর পরিস্কার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটা ব্যবহারে আপনার মুখের লোমকূপের ছিদ্র থেকে ময়লা বের হয়ে আসবে।

এলোভেরা ডিটক্স ফেস মাস্ক

উপাদানঃ

  • এলোভেরার রস
  • কয়েক টুকরা আম
  • লেবুর রস

যেভাবে বানাবেনঃ ২ থেকে ৩ চামচ এলোভেরার রসের সঙ্গে পাকা আম থেঁতো করে একটি পাত্রে নিন। এই দুটো উপাদান ভালো করে মেশান। সবশেষে এতে লেবুর রস মেশান। এবার এই মিশ্রণটি মুখ, গলা ও হাতে লাগান। গোসলের আগে এই প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। কিছুক্ষন পর গোসল করে নিন। এতে আপনি খুব তরতাজা ও ঝরঝরে অনুভব করবেন।

বন্ধ হয়ে যাওয়া লোমকূপ খোলার জন্য এলোভেরার ফেসপ্যাক

উপাদানঃ

  • এলোভেরা বা ঘৃতকুমারী
  • গোলাপজল

বয়সের কারণে, ব্রণের কারণে ত্বকের লোমছিদ্র বড় হয়ে যেতে পারে। এলোভেরা জেলের ব্যবহারে এই লোমকূপ সংকুচিত হয়ে ছোট হয়ে যায়। এবং এলোভেরার এন্টি-ব্যাক্টিরিয়াল গুণের কারণে জীবাণুও মরে যায়। এলোভেরার রসের সঙ্গে গোলাপ জল মিশিয়ে একটি বিশেষ প্যাক তৈরি করুন। মুখ পরিস্কার করে তুলার সাহায্যে মুখ, গলা এবং হাতে লাগান। ২০ মিনিট রেখে দিন। তারপর মুখ ধোয়ার আগে কিছুক্ষন ম্যাসাজ করুন।

এতে আপনার ত্বকের লোমকূপে জমে থাকা ময়লা দূর হয়ে যাবে। তারপর মুখ ধুয়ে ঠান্ডা শীতল পানির ঝাপ্টা দিন। ঠান্ডায় বড় হয়ে যাওয়া লোমকূপ সংকুচিত হয়ে যাবে।

pixel-4380873

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: