Skip to content

চুল পড়া কমাতে ও চুলের উজ্জ্বলতা বাড়াতে চারটি প্যাক

নগর জীবনের দূষণ, ব্যস্ততা আর নানাবিধ পেরেশানির কারণে অনেকেরই খুব অল্প বয়সে চুল পড়ে মাথায় গড়ের মাঠ জেগে উঠে। মেয়েরাও এক্ষেত্রে পিছিয়ে নেই। অনেকের চুল পাতলা হয়ে যাওয়ার কারণে তারা ছেলেদের মত ছোট ছোট করে ছেঁটে ফেলে।

তাই আজকাল চুল নিয়ে মানুষের বিস্তর অভিযোগ শোনা যায়। কিছুদিন পরপরই কেউ কেউ চুলের ট্রিটমেন্ট করতে ছুটে যান পার্লারে। চুলের এতসব সমস্যার পিছনে মূল ভুমিকা পালন করে আবহাওয়ার পরিবর্তন, দূষণ, ধুলোবালি, অস্বাস্থ্যকর জীবনযাপন, অতিরিক্ত চিন্তা, উদ্বেগ, মানসিক চাপ ইত্যাদি।

yuong-female-making-hair-care-procedure-2

একজন অল্প বয়সী সুন্দরী মহিলা হেয়ার ড্রেসার সেলুনে চুলের যত্ন নিচ্ছেন।

তাই রুক্ষ, শুষ্ক চুলকে আপন আঙ্গিকে ফিরিয়ে আনতে নিয়মিত চুলের যত্ন নেয়া প্রয়োজন। চুলের যত্নে নান ধরনের হেয়ার প্যাক ব্যবহার করার কথা শোনা যায়। এর মধ্যে পাকা পেঁপে চুলে অনেকটা ম্যাজিকের মত কাজ করে। আজ আমরা এমন চারটি প্যাকের ব্যবহার সম্পর্কেই জানবো।

১। পাকা পেঁপের প্যাক

পাকা পেঁপে ও পেঁপের বীজ খুশকি দূর করতে বেশ কার্যকর। খুশকির সমস্যা দূর করতে এই প্যাকটি ব্যবহার করতে পারেন। বীজসহ অর্ধেক পেঁপে পেস্ট করে নিন। তবে খোসা ফেলতে কিন্তু ভুলবেন না।  এই প্যাকটি মাথার তালুসহ সম্পূর্ণ চুলে প্রয়োগ করুন। এক ঘন্টা পর ভালো কোনও শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। পেঁপের বীজে ফাঙ্গাসরোধী উপাদান থাকায় তা খুশকির বিস্তার রোধ করতে সাহায্য করে।

২। পাকা পেঁপে, অলিভ অয়েল ও মধু

আপনার চুলের দৈর্ঘ্য অনুসারে পেঁপে নিন এবং ভালো করে চটকে পেস্টের মত বানিয়ে নিন। এর সঙ্গে বিশুদ্ধ অলিভ অয়েল ও মধু মেশান। এই প্যাকটি ঘন ও থকথকে করতে এগবিটার দিয়ে ভালো করে ফেটে নিন। এবার প্রথমে আপনার চুলে কিছু পানি স্প্রে করে চুল ভিজিয়ে নিন। তারপর প্যাকটি চুলে ভাগে ভাগে লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু দিয়ে সম্পূর্ণ চুল ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি চুলকে মসৃণ, রেশমের মত পেলব ও উজ্জ্বল করে তুলবে।

৩। পেঁপে ও টকদইয়ের মিশ্রণে হেয়ার প্যাক

কয়েক টুকরা পেঁপে নিয়ে হাতের সাহায্যে চটকে নিন। তারপর ২ টেবিল চামচ পরিমান টকদই মেশান। এবং এই মিশ্রণটি ভালো করে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এই পেস্টটি এবার মাথার তালু থেকে শুরু করে চুলের আগা পর্যন্ত লাগান। এক ঘন্টা রেখে দিন। তারপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। এই প্যাক ব্যবহার করলে আপনার চুলের আগা ফাটা থেকে শুরু করে বিভিন্ন সমস্যাগুলো দূর হয়ে যাবে। এছাড়াও মাথার ত্বকে কোনও চুলকানি থাকলে তাও দূর করবে।

৪। পেঁপে, নারকেলের দুধ এবং মধুর প্যাক

তিন টেবিল চামচ পরিমান পাকা পেঁপের পেস্ট, এক টেবিল চামচ পরিমান নারকেলের দুধ এবং মধু মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। এবার এই প্যাকটি আপনার চুলে আগা থেকে গোড়া পর্যন্ত ভালোভাবে লাগান। এক ঘন্টা পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। শ্যাম্পু করার পর কন্ডিশনারও ব্যবহার করতে পারেন। কন্ডিশনার হিসেবে এলোভেরা জেল ব্যবহার করা যায়। এই প্যাকটি চুলের গোড়া মজবুত করার পাশাপাশি চুলকে মসৃণ এবং রেশম কোমল করে তুলবে।

সপ্তাহে এই প্যাকগুলো একবার করে ব্যবহার করলে আপনি খুব ভালো ফল পাবেন। কমপক্ষে ১ মাস ব্যবহার করলে আপনি আপনার চুলে দৃশ্যমান পরিবর্তন দেখতে পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: