Skip to content

এমব্রয়ডারি কি শুধুই মেয়েদের কাজ

এম্ব্রয়ডারী বা হাতের কাজকে মেয়েদের একটি প্রিয় শখ হিসেবে দেখা হলেও এর চাহিদার কথা বিবেচনা করে এটা আজকাল কারো কারো জীবিকার মাধ্যম হয়ে উঠেছে। আর এ কারণেই আজকাল অনেকেই এর প্রতি আগ্রহী। অনেক দেশে পুরুষদের মধ্যে এই কাজটি ব্যাপকভাবে জনপ্রিয়। কারণ, এটা তাদের জীবিকার অন্যতম উপায়। এমব্রয়ডারি এমন একটি দক্ষতা যা যে কেউ আয়ত্ব করতে পারে, চাই সে ছেলে বা মেয়ে অথবা যেকোনো বয়সেরই হোক না কেন এটা কোনও বিষয়ই নয়।

হস্তশিল্পের বিবেচনায় এটা অনেক উচ্চমানের একটি শিল্প, যা শুধু মেয়েদের জন্যই নয় বরং ছেলেদের জন্যও। একটি সফল এমব্রয়ডারির জন্য অনেক ধরনের যোগাযোগ দক্ষতা ও মননশীলতার প্রয়োজন হয়, এবং আপনি এমন সব ডিজাইন বা প্যাটার্ন তৈরি করতে পারেন যা বাজারে সাধারণত উচ্চ মূল্যে বিক্রয় হয়ে থাকে।

এটা এমন এক দক্ষতা যা আপনার সৃজনশীলতা ও চিন্তন প্রক্রিয়াকে ব্যাপকভাবে অনুপ্রাণিত করবে। পাশাপাশি এটা আপনাকে জীবনের অন্যান্য ক্ষেত্রে সুচারু ও সুচিন্তিতভাবে কাজ করতে সাহায্য করবে। এমব্রয়ডারি শুরু করার জন্য আপনার অনেক কিছুর প্রয়োজন নেই। কেবল মানসম্মত কিছু উপাদানে আপনাকে বিনিয়োগ করতে হবে। এরপর আপনার সৃজনশীলতা কাজে লাগিয়ে আপনি ডিজাইন ও প্যাটার্ন তৈরি করতে পারেন। যা আপনার পরবর্তী একাধিক প্রজেক্টে সুবিধামত বসিয়ে কাজ শুরু করতে পারেন।

এমব্রয়ডারি করার কোনও নির্দিষ্ট পদ্ধতি নেই। এখানে ৯৯% সৃজনশীলতা ও ১% দক্ষতা ব্যবহার করা হয়। বিপরীতধর্মী রং ও সেলাইয়ের মিশেলে আপনি তৈরি করতে পারেন নান্দনিক সব ডিজাইন। তবে এমব্রয়ডারি করার জন্য কিছু বেসিক সেলাই আছে। যা আপনাকে কাজ শুরু করার আগে অবশ্যই ভালভাবে শিখতে হবে।

এই কাজ করে আপনি অনেক মজা ও তৃপ্তি পাবেন। এমব্রয়ডারি করার জন্য দিনে অনেক সময় ব্যয় করার দরকার নেই। যদিও যারা পেশাজীবী হিসেবে কাজ করেন, তারা সাধারণত দিনের বেশীর ভাগ সময় এমব্রয়ডারি নিয়ে থাকেন। কিন্তু শখ হিসেবে কাজ শুরু করলে আপনি শুরুতে ২-৩ ঘন্টা এমব্রয়ডারির পিছনে সময় ব্যয় করতে পারেন। এবং এভাবে আপনি চাইলে সপ্তাহে বা মাসে এমন কিছু তৈরি করতে পারেন, যা আপনাকে সত্যিই আনন্দ দিবে।

এম্বয়ডারী সম্পর্কে যদি কিছুই না জেনে থাকেন, তাহলে নিচের বইটি আপনাকে কাজ শুরু করতে সাহায্য করবে। এখানে আপনি ধাপে ধাপে এমব্রয়ডারি করার জন্য ২০০ এরও অধিক সেলাই সম্পর্কে জানতে পারবেন।

আশা করি, বইটি আপনার কাজে লাগবে। বইটি পড়ে উপকৃত হলে কমেন্টে তা আমাদেরকে জানাতে পারেন। এছাড়া আপনার জানামতে আরও ভালো কোনও বই থাকলে তা আমাদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না। সময় নিয়ে পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: