Skip to content

এবার ঘরেই তৈরি করুন অ্যালোভেরার সাবান

অ্যালভেরা ত্বকের যত্নের জন্য ব্যবহৃত সবচেয়ে দামী ঔষধি। এতে প্রায় ২০ টি অ্যামিনো অ্যাসিড, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম এবং সোডিয়াম যেমন খনিজ পদার্থ, এনজাইম, ভিটামিন, পলিস্যাকারাইডস, নাইট্রোজেন এবং অন্যান্য উপাদান রয়েছে যার ফলে এটা সৌন্দর্যচর্চায় অলৌকিক ঔষধি হিসেবেই বিবেচিত হয়।

aloe-vera-soap-recipe1-8196442

অ্যালোভেরা সাবানের রেসিপি

স্ট্যান্ডার্ড সাবান তৈরি পদ্ধতি অনুসরণ করুন: সাবধানে পানিতে লাই মেশান, এবং যখন এটা ঠান্ডা হয়ে যাবে তখন তেল গলে যাওয়া পর্যন্ত গরম করুন। যখন মোটামুটি একই তাপমাত্রায় এসে যাবে, তখন লাই মিশ্রিত পানি তেলের সাথে মেশান, এবং তারপর ট্রেস করার আগে অ্যালোভেরার রস বা জেল মেশান। খুব ভালোভাবে মেশান যাতে মিশ্রণটি একটি নির্দিষ্ট মাত্রায় গাড় বা থকথকে হয়ে যায়। মোল্ডে ভরুন, এবং ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টার জন্য স্বাভাবিক তাপমাত্রায় নিরাপদ স্থানে রেখে দিন। এবার মোল্ড থেকে বের করুন এবং কেটে পিস পিস করুন। তারপর একটি কুকি র‍্যাকে ৪-৬ সপ্তাহের জন্য কিউরিং করতে রেখে দিন। এই চার থেকে ছয় সপ্তাহের মধ্যে মিশ্রণটি সম্পূর্ণ সাবানে রুপান্তরিত হবে।

নোটঃ যদি আপনি নিজের গাছের অ্যালোয় ব্যবহার করেন তাহলে পাতা থেকে একেবারে সাদা জেলগুলোই নিবেন!

অ্যালোভেরা সাবানের উপকারিতা

রূপচর্চার উপাদান হিসেবে অ্যালোভেরা সাবান আপনার ত্বকের জন্য অসাধারণ কার্যকর উপাদান হতে পারে। প্রাচীনকাল থেকেই অ্যালোভেরা ত্বকের বিভিন্ন রোগ-বিমার দূর করতে এবং শুষ্ক ও পুড়ে যাওয়া ত্বকের চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে। অনেক ডাক্তাররা দেহের ভিতরের ত্বকের চিকিৎসায়, যেমন আরথ্রাইটিসের ক্ষেত্রে অ্যালোভেরা খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এসব ক্ষেত্রে অ্যালোভেরা ব্যবহার করার মূল কারণ হচ্ছে, এর উপাদানগুলো খুব সহজেই ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে এবং আক্রান্ত স্থানে প্রাকৃতিক প্রতিরোধ তৈরি ও ব্যথা উপশম করতে সাহায্য করে।

এছাড়াও অ্যালোভেরা অ্যালোপিসিয়ার চিকিৎসায় ব্যবহৃত হয়ে থাকে। অ্যালোপিসিয়া এমন একটি সমস্যা যার ফলে পুরুষদের মাথায় টাক দেখা দেয়। আর একারনেই অ্যালোভেরা কেবল সাবানের ক্ষেত্রেই নয়, শ্যাম্পুর ক্ষেত্রেও ব্যবহৃত হয়ে থাকে। একইসাথে এই উদ্ভিদের রসে থাকা আর্দ্র উপাদান ত্বক, মাথার ত্বক এবং চুল শুকিয়ে যাওয়ার হাত থেকে রক্ষা করে। আর এ কারনেই অ্যালোভেরা সাবান ব্যবহার করলে আপনার ত্বক খুব মসৃণ আর আর্দ্র থাকবে। এটা আপনার ত্বককে মসৃণ এবং চকচকে করে তুলতে সাহায্য করবে। যার ফলে, আপনাকে খুব অল্প বয়স্ক মনে হবে।

অ্যালোভেরার সাবান আসলে অনেক ক্ষেত্রেই ব্যবহার করা যায়। অনেক গবেষণায় দেখা গেছে, অ্যালোভেরা পুড়ে যাওয়া ত্বককে দ্রুত আরোগ্য করতে সাহায্য করে। আর এ কারণেই অনেক দেশে পুড়ে যাওয়া ত্বকের উপর সরাসরি অ্যালোভেরার রস ব্যবহার করা হয়, যাতে কোনও দাগ ছাড়াই রোগীর ত্বক আরোগ্য লাভ করে। অনেক ক্ষেত্রে অ্যালোভেরার রস অ্যালার্জির জ্বালাপোড়া, চুলকানী ও পোকার কামড়ের চিকিৎসায় ব্যবহার করা হয়।

মূলত, অ্যালোভেরা সাবান এর বহুবিধ উপকারিতার জন্যই আপনার ত্বকের ক্ষেত্রে সুফল বয়ে আনতে পারে। একইসাথে অ্যালোভেরা খুব শক্তিশালী বিষনাশক, যা আপনার ত্বকের জন্য ক্ষতিকর বিভিন্ন উপাদান দূর করে, ত্বকের বুড়িয়ে যাওয়া প্রতিরোধ করবে। এতে পরীক্ষিত অ্যান্টি ব্যাক্টিরিয়াল উপাদান আপনার ত্বককে পরিষ্কার করার পাশাপাশি প্রশমিত করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: