Skip to content

জায়ফলের দশটি জাদুকরী ব্যবহার

জায়ফল গুঁড়া

উপমহাদেশে রান্নাবান্নায় সুপ্রাচীনকাল থেকে ব্যবহৃত একটি মসলার নাম হচ্ছে জায়ফল বা (Nutmeg)। এই মসলাটি রান্নার স্বাদ ও গন্ধ বহুগুণে বাড়িয়ে দেয়। এর মূল কাজ হচ্ছে গোশতকে নরম করা ও সহজপাচ্য করে তোলা। আপনি জানেন কি রান্নার পাশাপাশি জায়ফল ত্বকের যত্নেও ব্যবহার করা যায়। এই মসলাতে আছে বিশেষ ধরনের এন্টি-অক্সিডেন্ট ও এন্টি ব্যাক্টেরিয়াল হিলিং প্রপার্টি, ব্রণের জন্য দায়ী ব্যাকটেরিয়া ও ব্রণের ফলে সৃষ্ট ক্ষত দূর করতে কার্যকরী ভূমিকা রাখে।

যেকোনো বাজারে বা সুপারশপে আজকাল আস্ত বা গুঁড়া জায়ফল পাওয়া যায়। আজকে আমরা জায়ফলের জাদুকরী দশটি ব্যবহার সম্পর্কে জানবো, যা আপনার ত্বককে ব্রণ থেকে মুক্ত করার পাশাপাশি আরও আকর্ষণীয় করে তুলবে।

১। তৈলাক্ত ত্বকে প্রায় সময়েই ব্রণের সমস্যা দেখা যায়। ব্রণ দূর করতে জায়ফল গুঁড়া করে এর সাথে সামান্য মধু মিশিয়ে একটি কটনবাড দিয়ে শুধু ব্রণের জায়গাগুলোতে লাগিয়ে রাখুন। ৩০ মিনিট পর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

২। যাদের ত্বক বেশ শুষ্ক এবং প্রায়ই ফুসকুড়ির মত পিম্পল দেখা যায়, তাঁরা জায়ফল গুঁড়া করে এর সঙ্গে জাফরান, গুঁড়ো দুধ, মধু ও সামান্য পানি মিশিয়ে একটি প্যাক বানান। এটা আক্রান্ত জায়গাগুলোতে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। অতি সহজেই পিম্পল সেরে যাবে।

৩। জায়ফল দিয়ে ফেস স্ক্রাবও বানানো যায়। এজন্য জায়ফল গুঁড়ার সাথে কফি ও অলিভ অয়েল মিশিয়ে একটি স্ক্রাব বানান। গোসলের আগে হালকা হাতে স্ক্রাব করে নিন। এটা ত্বকের মরা চামড়া দূর করে খুব সহজেই ত্বক উজ্জ্বল করে।

৪। সিস্টিক একনে বা পুঁজযুক্ত ও ব্যথাযুক্ত ব্রণ সারানোর জন্য জায়ফল গুঁড়ার সাথে দারুচিনি গুঁড়া ও টকদই মিশিয়ে কটন বাডের সাহায্যে শুধু ব্রণের মুখে লাগান। পুরো মুখে লাগাবেন না। কারণ এতে জ্বালাপোড়া করতে পারে। দারুচিনি ও জায়ফল দুটোই বেশ ঝাঁঝালো উপকরণ। তাই কখনই ভালো জায়গাতে প্রয়োগ করবেন না। দেয়ার আগে অবশ্যই স্কিন টেস্ট করে নিবেন। যদি আপনার ত্বকে বিরূপ প্রতিক্রিয়া হয় তবে সাথে সাথে ধুয়ে ফেলুন।

৫। ব্রণের ফলে সৃষ্ট ক্ষতচিহ্ন বা দাগ সারানোর জন্য জায়ফল গুঁড়ার সাথে হলুদ গুঁড়া ও সামান্য ডাবের পানি মিশিয়ে ব্যবহার করুন।

৬। ত্বকের অতিরিক্ত তেলতেলে ভাব দূর করতে জায়ফল গুঁড়ার সাথে অল্প পরিমাণ বেকিং সোডা ও পানি মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে ব্যবহার করতে পারেন।

৭। ত্বকের ভাঁজ দূর করতে ও ত্বক টান টান রাখতে জায়ফল গুঁড়ার সাথে কফির গুঁড়া মিশিয়ে একটি ফেসপ্যাক বানান। ১০ মিনিট ত্বকে লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন।

৮। জায়ফল গুঁড়া, শঙ্খ গুঁড়া ও মুলতানী মাটি মিশিয়ে একটি ফেসপ্যাক বানিয়ে রাখুন। এতে অল্প পরিমাণ দুধ দিয়ে পেস্ট বানিয়ে সপ্তাহে দুইবার ব্যবহার করুন। এর ফলে ব্রণ দূর হওয়ার পাশাপাশি ত্বকের উজ্জ্বলতাও বাড়বে।

৯। আপনার মুখে যদি ব্রণ না থাকে, তবে ভবিষ্যতে ব্রণের সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে জায়ফলের সাথে লেবুর রস এবং মধু মিশিয়ে ১০ মিনিট রেখে দিন। এরপর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটা রাতে ঘুমানোর আগে ব্যবহার করতে পারেন। সকালে উঠে একেবারে পরিস্কার ও ফ্রেশ ত্বক পাবেন।

১০। ব্রণের ফোলাভাব কমাতে লবঙ্গ তেলের সাথে জায়ফল গুঁড়া মিশিয়ে ব্রণের উপর ১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। এরপর কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এর ফলে ব্রণের ফোলা ভাব কমে যাবে। লালচে ভাবও কমে যাবে এবং ব্রণের মুখ চেপে ছোট হয়ে আসবে।  

আশা করি জায়ফল দিয়ে রূপচর্চার এই টিপসগুলো আপনাদের কাজে আসবে এবং ব্রণ মুক্ত জীবন-যাপন করতে সাহায্য করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: