Skip to content

কিভাবে রান্না করবেন স্পেশাল চিকেন বিরিয়ানী

স্পেশাল চিকেন বিরিয়ানী

ঘরে তৈরি স্পেশাল চিকেন বিরিয়ানী কিন্তু আপনার খাবারের টেবিলে অন্যরকম আমেজ নিয়ে আসবে। এই রেসিপিটি এমন একটি চিকেন বিরিয়ানীর যার স্পেশাল স্বাদ ও গন্ধ একবার খেলে বহুদিন মুখে লেগে থাকবে। চলুন, তাহলে দেখে নেই মজাদার রেসিপিটি।

উপকরণঃ

১। মুরগী -১ কেজি

২। টক দই – কোয়ার্টার কাপ

৩। তেজপাতা – ২টি

৪। সাদা এলাচ – ৪-৫টি

৫। কালো এলাচ – ২টি

৬। কাবাব চিনি – ৬-৭টা

৭। লং – ৩ টি

৮। দারচিনি – ২ টুকরা

৯। সাদা কালো গোল মরিচের গুঁড়া – ১/২চা চামচ

১০। লাল মরিচের গুঁড়া – ১ চা চামচ

১১। ধনিয়ার গুঁড়া – ১ চা চামচ

১২। লবণ – স্বাদমতো

১৩। জায়ফল বাটা – ১/২চা চামচ

১৪। জয়এি – ১/২চা চামচ

১৫। আদা বাটা – ২ চা চামচ

১৬। রসুনবাটা – ২ চা চামচ

১৭। পেয়াঁজ বেরেস্তা – ১/২কাপ

১৮। ঘি – ১/২চা চামচ

১৯। জাফরান – ১ চিমটি

২০। পেয়াঁজ ভাজার তেল – যে পরিমাণ আছে

২১। কেওড়াজল – দেড় চা চামচ

২২। দুধ – ১কাপ

২৩। কাঁচামরিচ – ২-৩টি

২৪। চিনি – ২ চা চামচ

২৫। বাসমতী চাল- প্রয়োজন অনুযায়ী

২৬। শাহি জিরা – ১ চিমটি

২৭। ধনে পাতা – সামান্য

২৮। পুদিনা পাতা – সামান্য

২৯। লেবুর রস – সামান্য

৩০। সাদা কালো গোল মরিচের গুঁড়া – সামান্য

৩১। লবণ – স্বাদমত

৩২। শাহি জিরা – ১ চিমটি

৩৩। কাঁচা মরিচ – ৬-৭টা

৩৪। পেঁয়াজ বেরেস্তা – কিছুটা

৩৫। মাওয়া – ১ চামচ

৩৬। কিস মিস – ১মুঠ

৩৭। আলুবোখারা – ১মুঠ

৩৮। কাজুবাদাম – অল্প কিছু

৩৯। গোলাপজল – অল্প কিছু

৪০। কেওড়াজল – দেড় চা চামচ

৪১। পেঁয়াজ বেরেস্তা – প্রয়োজন অনুযায়ী

৪২। জাফরান পানি – কিছুটা

৪৩। ঘি – কিছুটা

প্রণালিঃ

প্রথমে নিয়ে নিবেন পাকিস্তানি মুরগি ১ কেজি। এবার দিয়ে দিবেন কোয়ার্টার কাপ টক দই, ২টি তেজপাতা, ৪-৫টি সাদা এলাচ, ২টি কাল এলাচ। এলাচগুলো অবশ্যই থেতো করে নিবেন। এবার দিয়ে দিবেন ৬-৭টা কাবাব চিনি, ৩টি লং, ২টুকরা দারচিনি, ১/২চা চামচ সাদা কালো গোল মরিচের গুঁড়া, উঁচু করে ১ চা চামচ লাল মরিচ এর গুঁড়া, ১ চা চামচ ধনিয়ার গুঁড়া, স্বাদমতো লবণ, ১/২ চা চা চামচ জায়ফল ও ১/২চা চামচ জয়ত্রি দুটো একসাথে বেঁটে, ২ চা চামচ আদা বাটা, ২চা চামচ রসুনবাটা, ১/২কাপ পেঁয়াজ বেরেস্তা, ১/২ চামচ ঘি, ১ চিমটি জাফরান, পেঁয়াজ ভাজার তেল। সমস্ত উপকরণ ভালমতো মাখিয়ে নিবেন। সময় থাকলে ৩ ০মিনিট বা ১ঘন্টা মেরিনেট করবেন। না করলেও চলবে।

মাখানো হলে দেড় চা চামচ কেওড়া জল দিতে হবে। ভালোমত মিশিয়ে নিবেন। এবার ১কাপ দুধ দিয়ে দিতে হবে। এবার চুলায় দিয়ে দিতে হবে। প্রথমে হাই হিট এ বলক আসার অপেক্ষা করতে হবে। বলক উঠলে এতে মাঝখান থেকে ভেংগে ২-৩টি কাঁচা মরিচ দিয়ে দিন। এবার ঢেকে দিয়ে রান্না করবেন। বেশ কিছুক্ষণ রান্না করার পরে পানি যখন টেনে যাবে তখন দিয়ে দিবেন ২চা চামচ চিনি।

এবার তেল ভেসে উঠার আগ পযর্ন্ত আবার ঢাকনা দিয়ে রান্না করতে হবে। তেল উঠে গেলে এবার চিকেন উঠিয়ে ফেলতে হবে।এবার চিকেন এর তেলে দিয়ে দিবেন গরম পানি। যে পরিমাণ চাল তার ডাবল পরিমাণ পানি দিতে হবে। এতে দিয়ে দিবেন ১ চিমটি শাহি জিরা, সামান্য ধনে পাতা, সামান্য পুদিনা পাতা, সামান্য লেবুর রস, সামান্য সাদা কালো গোল মরিচের গুঁড়া এবং লবণ স্বাদমত। এবার মিশিয়ে নিয়ে বলক আসার পরে তাতে ১ চিমটি শাহি জিরা দিয়ে দিবেন ও ১ঘন্টা ভিজিয়ে রেখে সেই বাসমতী চাল ও এতে দিয়ে দিবেন। পোলাওর চাল দিয়ে রান্না করলে ধনে পাতা আর পুদিনা পাতা লাগবেনা। চাল আধা সিদ্ধ হয়ে গেলে এতে মুরগী দিয়ে দিবেন।প্রথমে কিছুটা চাল উঠিয়ে তারপর চিকেন দিয়ে দিবেন। তারপর, আবার চাল দিয়ে ঢেকে দিবেন।

এবার এতে ৬-৭ টি কাচাঁমরিচ, কিছুটা পেঁয়াজ বেরেস্তা, মাওয়া ১ চামচ, ১ মুঠ কিসমিস, ১ মুঠ আলুবোখারা, অল্প কিছু তেলে ভাজা কাজুবাদাম, কিছুটা গোলাপজল এবং দেড় চা চামচ কেওড়া জল দিয়ে দিবেন। এবার বাকি চাল দিয়ে দিবেন এর উপরে।তার উপর সামান্য পেয়াজ বেরেস্তা, কিছুটা জাফরান পানি (জাফরান গরম পানিতে ভিজিয়ে রেখে) এবং কিছুটা ঘি দিয়ে দিবেন। এখন বিরিয়ানীর উপর ঘি ছড়িয়ে দিয়ে ঢেকে ২০-২৫মিনিট দমে রেখে দিতে হবে। চাল এর প্যান এর নিচে তাওয়া দিতে হিবে। ১৫মিনিট পর বা বারবার উল্টিয়ে পাল্টিয়ে দিবেন। নাহলে পুড়ে যাবে। ৩০মিনিট দমে রাখতে হবে। রান্না হয়ে গেলে সালাদের সাথে পরিবেশন করুন মজাদার স্পেশাল চিকেন বিরিয়ানী

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: