Skip to content

রোজনামচা ২৪/৫/২১: গরমে ঠান্ডা থাকতে চাইলে যা করতে পারেন

সাগরের তীরে গরমকালের পরিবেশ

গরম! আহ্ কি অসহ্য গরম। গরমে যেনো জানপ্রাণ ওষ্ঠাগত। কিছু দিন যাবৎ এমন গরম পড়েছে যে, টেপের পানি সুদ্ধ গরম হয়ে থাকে। পানি খেয়ে তেষ্ঠা মিটানোর বৃথা চেষ্টা করে লাভ নেই। কারণ গরমে পায়ের তলা থেকে শুরু করে মাথার চান্দি পর্যন্ত খালি যেনো ঘামছে আর জ্বলছে।

তাই অনন্যপায় হয়ে কাঠ ফাটা গরমে কিভাবে নিজেকে ঠান্ডা রাখা যায়, সেই পদ্ধতি বের করতে এই ব্লগের অবতারণা করলাম। চলুন এই অসহ্য গরম আবহাওয়ায় কিভাবে নিজেকে কিছুটা ঠান্ডা রাখা যায়, তার কিছু পদ্ধতি বের করি।

তো এই মাত্র আমি কিছু ব্লগ পড়ে আসলাম যার সারাংশ নিচে লিখে রাখছি। বলা যায় না কখন কার কাজে লাগে।

গরমে নিজেকে ঠান্ডা রাখার পদ্ধতিগুলো হচ্ছেঃ

১। সরাসরি রোদে যাওয়া ও অত্যধিক পরিশ্রম থেকে দূরে থাকুনঃ গরমকালে শরীরের তাপমাত্রা এমনিতেই বাড়তি থাকে। তাই এই সময়ে সরাসরি রোদে যাওয়া বিশেষ করে সকাল ১১ টা থেকে ৩ টা পর্যন্ত রোদের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলুন। একান্তই এই সময়ে বাইরে বের হওয়ার প্রয়োজন হলে রোদ চশমা ও ছাতা রাখুন। এছাড়াও সানস্ক্রিন ব্যবহার করুন। তাহলে রোদের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে একটু হলেও বাঁচতে পারবেন।

২। ঘরের আসবাব পত্র হালকা রাখুনঃ শহরের বদ্ধ আবহাওয়ায় বড় বড় দালান কোঠার ভিড়ে বাতাস মুক্তভাবে চলাচল করতে পারে না। এর মধ্যে যদি ঘর আসবাবপত্রে ঠাসা থাকে, তাহলে ঘরের আবহাওয়া আরো গুমোট ও বদ্ধ হয়ে উঠবে। তাই অপ্রয়োজনীয় সমস্ত আসবাবপত্র কমিয়ে ফেলুন। শুধুমাত্র অতি দরকারী ও প্রয়োজনীয় আসবাব পত্রে ঘর সাজান। ঘরের দেয়ালে হালকা ও স্নিগ্ধ রং ব্যবহার করুন। এতে ঘর অনেক ঠান্ডা ও ছিমছাম মনে হবে।

৩। ফ্রিজে পর্যাপ্ত পরিমাণে ঠান্ডা পানি রাখুনঃ গরমে প্রচু্র পরিমাণে পানি দেহ থেকে ঘামের মাধ্যমে বের হয়ে যায়। তাই এই সময়ে অবশ্যই পর্যাপ্ত পানি পান করতে হবে। এজন্য ফ্রিজে পর্যাপ্ত ঠান্ডা পানি রেখে দিতে পারেন যা আপনার তেষ্টা দূর করতে সাহায্য করবে।

৪। খাবার তালিকায় ঠান্ডা ও সস্তিদায়ক খাবার রাখুনঃ গরমের সময় গুরুপাক খাবার যেমন মাংস, ভাজা পোড়া, ডিম ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। এর বদলে শসা, বাঙ্গি, ফুটি, তরমুজ, লাউ, ঝিঙ্গা, পুঁই শাক ও বিভিন্ন ধরনের মৌসুমি ফল খেতে পারেন। মোটকথা, এমন খাবার খান, যেগুলো হজম হয়ে যায় এবং হজমের গোলযোগ তৈরি করে না।

৫। একাধিকবার গোসল করুনঃ গরমে নিজেকে ঠান্ডা রাখতে একাধিকবার গোসল করতে পারেন। প্রয়োজনে পানির সঙ্গে বরফ মিশিয়ে পানি যথেষ্ট পরিমাণ ঠান্ডা করে নিতে পারেন, যাতে অতিরিক্ত তাপমাত্রা দূর হয়ে যায়।

৬। ঢিলেঢালা ও হালকা রঙের পোশাক ব্যবহার করুনঃ গরমের সময় ঢিলেঢালা ও হালকা রঙের পোশাক পরতে চেস্টা করুন। সবচেয়ে ভালো হচ্ছে পাতলা ও নরম সুতি কাপড়। এতে আপনার অনেক হালকা পাতলা অনুভূত হবে ও গরম কম লাগবে। সঙ্গে রাখতে পারেন হাতপাখা, যা অত্যধিক গরমে আপনাকে বাড়তি আরাম দিবে।

৭। রাতে ঘর ঠান্ডা করার উপায়ঃ গরমের সময় রাতের বেলা সারাদিনের গরম জমে ঘর এমনিতেই গরম হয়ে যায়। এর সঙ্গে যদি বাতাস চলাচল করার সুযোগ না থাকে, তাহলে তা যেনো মরার উপর খাড়ার ঘা। চটজলদি রাতে ঘর ঠান্ডা করতে চাইলে সব লাইট বন্ধ করে ঘরের সব দরজা ও জানালাগুলো খুলে দিন। ঘরের ভিতর এক বালতি ঠাণ্ডা পানি রেখে পাখা চালিয়ে দিন। এছাড়াও জানালার পর্দায় পানি স্প্রে করা দিতে পারেন। এর ফলে বাইরের গরম বাতাস ঘরে ঢুকলে ঠাণ্ডা হয়ে ঢুকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: