Skip to content

সহজ পদ্ধতিতে ঘরে তৈরি ক্রিম ছাড়া আমের আইসক্রিম

ক্রিম ছাড়া আমের আইসক্রিম

এখন চলছে আমের মৌসুম। আবার সেই সাথে বেশ গরমও পড়েছে। তাই ইচ্ছে করলে এই সময়ে অল্প কিছু উপকরণ দিয়ে ঘরে বানিয়ে নিতে পারেন আমের আইসক্রিম (Mango Icecream)। ভাবছেন, আইসক্রিম কিনেই তো খাওয়া যায়। বানাতে যাবো কেন?

হ্যাঁ, কিনে খাওয়া যায়। তবে ঘরে বানালে আপনি খুব অল্প টাকায় অনেক বেশী পরিমাণে আইসক্রিম বানাতে পারবেন। আর সব কিছু একেবারে তাজা ও ফ্রেশ উপকরণ দিয়ে বানাতে পারবেন যা কেনা আইসক্রিমে অনেক সময় পাওয়া যায় না। এছাড়াও ঘরে বানালে ইচ্ছেমতো ডেকোরেশন ও ফ্লেভার যোগ করতে পারবেন। তাই একবার বানিয়ে দেখুন, আর কখনই কিনে খেতে ইচ্ছে করবে না।

ঘরে বসেই এখন দোকানের মতো আইসক্রিম বানানো যায়।

আজকে আমরা ক্রিম ছাড়া আমের আইসক্রিম রেসিপি নিয়ে আলোচনা করবো। এই আইসক্রিম তৈরি করা বেশ সহজ। বাসায় থাকা অল্প কিছু উপকরণ দিয়েই তৈরি করা যাবে।

কি কি লাগবেঃ

এই আইসক্রিম তৈরি করতে কোনও ক্রিম (Whole Cream) লাগবে না। শুধু লাগবে এক টেবিল চামচ কন্ডেন্সড মিল্ক (Condensed Milk), ১ লিটার দুধ (Full Cream Milk) ও ১ কাপ গুঁড়া দুধ (Skimmed Milk), প্রয়োজনে এক চা চামচ কর্ণ ফ্লাওয়ার (Corn Flour) পানিতে গুলে মিশিয়ে প্রয়োজনীয় পরিমাণে ঘন করে নিতে পারেন। এছাড়া লাগবে পাঁচটি পাকা আমের পিউরি (Ripe Mango Puree)।

রন্ধনপ্রনালীঃ

প্রথমে পাকা আমগুলো ভালো করে খোসা ছাড়িয়ে নিন। যাতে শক্ত শক্ত ভাব বা কোনও আঁশ না থাকে। এবার আমগুলো কিউব করে কেটে ব্লেণ্ডারে ভালো করে ব্লেন্ড করে নিন। এক লিটার দুধ চুলায় বসিয়ে জ্বাল দিয়ে অর্ধেকের কম করে নিন। এই ঘন করাতে যদি থকথকে ভাব না আসে, তবে এর সঙ্গে এক চামচ কর্ণ ফ্লাওয়ার পানিতে গুলে নেড়ে নেড়ে মিশিয়ে নিন। দুধ ঘন হয়ে গেলে এবার একপাশে ঠাণ্ডা হতে রেখে দিন। আমের পিউরি কিছুটা জ্বাল দিয়ে ঘন করুন ও ঠান্ডা করে নিন। এবার আমের পিউরির সাথে কন্ডেন্সড মিল্ক মেশান।

আবার ব্লেণ্ড করে নিন এবার এর সঙ্গে গুঁড়া দুধ ও ঘন দুধ মেশান ও স্প্যাটুলা (Spatula) বা কাঠের চামচ বা এগ বিটারের (Egg beater) সাহায্যে ভালো করে মিশিয়ে নিন। মোট তিনবার ব্লেন্ড করার পর মিশ্রণটি বেশ থকথকে ও ঘন হয়ে যাবে। এবার এটাকে ডিপ ফ্রিজে জমতে রেখে দিন। চার পাঁচ ঘন্টা পর বের করে আবার ব্লেন্ড করে পুনরায় ফ্রিজে রেখে দিন। এবার রেখে দেয়ার সময় এর উপর, কাজুবাদাম (Cashew nut) ও পেস্তাবাদাম (Pistachio) কুঁচি ছড়িয়ে দিন। সঙ্গে কিশমিশ (Raisins) ও আলু বোখারাও (Prune) দিতে পারেন। এবার ১২-১৩ ঘন্টা পর ফ্রিজ থেকে নামিয়ে স্কুপ দিয়ে কেটে কেটে পরিবেশন করুন। চাইলে কিশমিশ বাদাম পরিবেশনের সময়ও দিতে পারেন।   

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: