যদি অপরূপ হয়ে উঠতে চাও তুমি…

যদি অপরূপ হয়ে উঠতে চাও তুমি

যদি অপরূপ হয়ে উঠতে চাও তুমি…

যদি অপরূপা কোকিল কন্ঠী হয়ে উঠতে চাও,
সুন্দর ভাষা আর শব্দ মালায় নিজের কন্ঠ সাজাও।

যদি কাজল চোখের চাহনীর চাইতে 
মোহনীয় চোখ পেতে চাও,
দুটি চোখ দিয়ে শুধু অন্যের মাঝে
ভালো গুণ দেখে যাও।

যদি অপরূপ সুন্দর ছিমছাম দেহ পেতে চাও,
তবে, যারা ক্ষুধার্ত আছে, তাদের সাথে, 
তোমার খাবার ভাগ করে নাও।

যদি রেশম কোমল মমতা জড়ানো চুল পেতে চাও,
তবে শিশুর কোমল হাতের স্পর্শ প্রতিদিন মাথায় ছোঁয়াও।

যদি সর্বক্ষন কোনো সঙ্গী নিয়ে পথ চলতে চাও,
তবে, সর্বদা জ্ঞানের সন্ধানে চলো, 
কখনো একাকী মনে হবে না।

মানুষ ভেঙ্গেচুরে নতুন করে গড়ে উঠার 
মতো নয়,
বরং মানুষের চরিত্র ভালো গুণ ও যত্নে মহিমান্বিত হয়।

তুমি যত বড় হয়ে উঠবে, ততই দেখবে 
তোমার একটি হাত নিজের সাহায্যের জন্য 
আর আরেকটি হাতে অন্যকে আঁকড়ে ধরার জন্য।

যখন তোমার কারো সাহায্যের দরকার হবে, 
তখন তুমি দেখবে কেউ একজন তোমার হাত ধরে আছে। 

যখন তুমি দাঁড়াতে পারবে না, তখন দেখবে 
কেউ একজন তোমায় টেনে তুলে নিয়ে যাচ্ছে। 

আর এটা একারণেই যে তুমি একদিন কারো হাত ধরেছিলে, 
অথবা কারো অবলম্বন হয়েছিলে, 
সেই হাত এখনো প্রতিদান দিতে সুযোগ খুঁজে যাচ্ছে।

মানুষের জীবন পুনর্জন্ম, পুনর্জাগরণ, 
পুনর্নিমানের চেয়ে বেশী কিছু,
কারন, মানুষ ঘটমান অতীত, বর্তমান 
সব কিছুই নিজের ভিতর পুষে রাখে।

অতীতের দিনের চেয়ে সামনের দিনটাকে 
সুন্দর করতে চোখ কচলে তাকাও,
দেখো! দিনগুলো একই রকম আছে,
শুধুমাত্র বদলে গেছে অনুভুতি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *